fbpx
Extra-Curricular Activities থেকে যে সহায়তা গুলো পাওয়া যায়
May 16, 2020
পরীক্ষায় দ্রুত লেখা শেষ করার সহজ উপায়
May 19, 2020

মাইন্ডসেট এবং সফট স্কিল

Spread the love

সফলতা মূলত দুইটি কারনে আসে, একটা হচ্ছে মাইন্ডসেট এবং আর একটা হচ্ছে সফট স্কিল।

১. মাইন্ডসেট

২. সফট স্কিল

মাইন্ডসেটঃ

মানুষের মাইন্ডসেট করা না থাকে কোন কাজে আসলে সফলতা আসে না। তাই আমাদের একটা নির্দিষ্ট মাইন্সের থাকতে হবে। মানুষকে দুই ভাগে ভাগ করা যায় –

১. গ্রোথ মাইন্ডসেট

২. ফিক্স মাইন্ডসেট

গ্রোথ মাইন্ড সেট এ মানুষরা মনে করে আমি যদি চেষ্টা করি, আমি যদি শিখতে চাই তাহলে আমার অনেক কিছুই শেখা সম্ভব। ফিক্স মাইন্ডসেটের মানুষকে মনে করে যে না এটা আমার দ্বারা হবে না, এইটা তে আমি ভালো না, ওইটা আমি করবো না, এটা করাই আমার জন্য সময় নষ্ট ইত্যাদি তাদের মানুষের টা আসলে ফিক্স করা থাকে যে আমার এই জায়গাতে ডেভলপ হয় সম্ভব না। গুদমারা সেটা মনে করে যে না বেইন হচ্ছে গাছের মত এটাও হবে,  পিকস মানুষের মনে করে এত দেয়ালের মত এটাকে আর গ্রো করা সম্ভব না।

মানুষের ব্রেইন কে আমরা প্লাস্টিক বলতে পারে কারণ এটা আস্তে আস্তে বড় হয়। যত বেশি মানুষ প্র্যাকটিস করবেন ততবেশি সে লার্ন করবে এবং যত বেশি সে লার্ন করবে তত বেশি তার ব্রেইন টা গ্রো করবে।

সফট স্কিলঃ

হার্বাট ইউনিভার্সিটি একটা রিসার্চ পাওয়া গেছে, “যেসব মানুষ চাকরি জীবনে সফল হয়, সেই সমস্ত মানুষের সফট স্কিল তাকে ৮৫% সহযোগিতা করে এবং টেকনিক্যাল স্কিল বা হার্ড স্কিল ১৫% সহযোগিতা করে।“

সফট স্কিল কেন গুরুত্বপূর্ণঃ

আমরা যদি উন্নত দেশগুলোর দিকে তাকায় তাহলে আমরা দেখতে পাব ৮৫% চাকরির সফলতা আসে সফট স্কিল দিয়ে।  যেমনঃ যারা এইআর প্রফেশনাল আছেন তারা যখন কোন ইন্টারভিউ নেন সেখানে তারা বেশি গুরুত্ব দেয় সফট স্কিল বা ইন্টার পার্সোনাল স্কিলের উপরে। তবে সে ক্ষেত্রে হার্ডস্কিলের বা টেকনিক্যাল স্কিলেরও গুরুত্ব আছে কারণ টেকনিক্যাল স্কিল বা হার্ড স্কিল ছাড়া কর্ম ক্ষেত্রে কাজ করা সম্ভব না।

এবং যারা জব সিকার তাদেরকে নিয়ে রিসার্চ করা হয়েছে সেখানে দেখা গেছে তারা বেশিরভাগই বলেছে যে চাকরির ক্ষেত্রে টেকনিক্যাল স্কিল বা হার্ড স্কিলের গুরুত্ব বেশি।

তারমানে দেখা যাচ্ছে যে যারা জব দিচ্ছেন এবং যারা জব খুজছেন তাদের মধ্যে একটা গ্যাপ তৈরি হয়েছে।জিনিসটা সবাইকে বুঝতে হবে এবং সব স্কিনের উপর গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ যারা এই জিনিসটা বুঝবেন না এবং মনে করবেন যে তাদের একাডেমিক রেজাল্ট  ভালো হলেই আমি জব পেয়ে যাব তারা আসলে আপনি পাবেন না আপনার যদি সফট স্কিল ডেভলপ না করেন। কারণ যারা আপনাকে চাকরি দিবেন তারা আপনার ইন্টার পার্সোনাল স্কিল বাস্তব স্কিলের উপরে প্রাধান্য দেন।

৫ ধরনের সফট স্কিন যা বর্তমানের থাকা অত্যাবশ্যকঃ

অনেকগুলো সফট স্কিন আছে যার মধ্যে যদি জানতে চাওয়া হয় কোন ধরনের সংস্কৃতি গুলো বেশী গুরুত্বপূর্ন তাহলে আমরা বলতে পারি-

১. প্রবলেম সলভিং

২. ক্রিটিকাল থিংকিং

৩. ক্রিয়েটিভিটি

৪. পিপল ম্যানেজমেন্ট এবং

৫. কলাবরেশন

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক রিপোর্ট অনুযায়ী এই পাঁচ ধরনের সফট স্কিল টপ লিস্টে আছে।

 

. প্রবলেম সলভিং

প্রবলেম সলভিং মানে হচ্ছে যার প্রবলেম সলভ করার এবিলিটি আছে। সে খেতে অনেকেই বলে থাকেন কিভাবে প্রবলেম সলভ করবেন। আসলে প্রবলেম সলভিং এর কিছু মেথড আছে। যেমন-

  • প্রবলেম আইডেন্টিফাই করা
  • প্রবলেমের কারণে খুজে বের করা
  • প্রবলেম এনালাইসিস করা
  • সলিউশন খুঁজে বের করা
  • সলিউশন গুলোকে অ্যানালাইসিস করা
  • সলিউশন নিয়ে প্ল্যানিং করা
  • ইমপ্লিমেন্ট করা

 

. ক্রিটিকাল থিংকিং

ক্রিটিকাল থিংকিং হচ্ছে আপনারা যখন কোন ইনফর্মেশন পান তখন তাকে কিভাবে রেশনালি যাচাই বাছাই বা মূল্যায়ন করবেন। আপনার মধ্যে এই যাচাই বাছাই বা মূল্যায়ন করার ক্ষমতা টা আছে কিনা। ক্রিটিক্যাল থিংকিং বলতে এখানে মানুষের এনালাইসিস সিং এর কথা বুঝানো হয়েছে।

আসলে ক্রিটিকাল থিংকিং হচ্ছে অনেক কিছু নিয়ে তৈরি করা একটা জিনিস যেমন এখানে এনালাইসিস আসবেন ইমপ্লিমেন্ট আসবেন, ইভালুয়েশন আসবেন।

. ক্রিয়েটিভিটি

ক্রিটিভিটি হচ্ছে সৃজনশীলতা। কোন কিছু নতুন ভাবে তৈরি করা, কোন কিছু ডিফারেন্ট ভাবে বা ভিন্ন ভাবে  তৈরি করা।

. পিপল ম্যানেজমেন্ট

পিপল ম্যানেজমেন্ট হচ্ছে আপনি কিভাবে মানুষকে ম্যানেজ করছেন। কিভাবে আপনি মানুষের সাথে মিশবেন, কিভাবে আপনি মানুষের সাথে কথা বলবেন, কীভাবে আপনি মানুষের সাথে একটা সম্পর্ক স্থাপন করবেন, এবং কিভাবে আপনি মানুষকে ম্যানেজ করবেন এটাই হচ্ছে মূলত পিপল ম্যানেজমেন্ট।

. কলাবরেশন

পিপল ম্যানেজমেন্ট এবং কলাবরেশন প্রায় কাছা-কাছি। কিন্ত টিপল ম্যানেজমেন্ট বলতে লিডারশীপ কোয়ালিটি কে বোঝায় আর  কলাবরেশন হচ্ছে টিমওয়ার্ক কোয়ালিটি।  আপনি কিভাবে একটা টিমের সাথে কাজ করছেন, কিভাবে টিম গঠন করছেন, কিভাবে একটা টিমকে নির্দেশনা দিচ্ছেন এটাই মূলত কলাবরেশন।

Comments are closed.