fbpx
শিক্ষকতা কোন পেশা নয়, সৃষ্টিকর্তার দেয়া মহান দায়িত্ব
July 7, 2020
এখন নয়,তো কখনোই নয়
July 9, 2020

আকাশ কত বড়?

Spread the love

আকাশ নিয়ে কৌতূহলের শেষ নেই। আমি যখন খুব ছোট তখন আকাশের দিকে তাকিয়ে ভাবতাম আকাশ কয়েকটা। আমার নিজ গ্রামে একটা, আমার নানুর বাড়িতে আরেকটা, অন্য গ্রামে আরেকটা,  এখন বিষয়টা হাস্যকর মনে হয়!  কারণ  আকাশ তো একটাই!

যাইহোকআকাশ অনেক বড় কিন্তু কত বড় তা এখনো জানিনা। শুধু যে আমি জানিনা তা নয়পৃথিবীর বড় বড় মহাবিজ্ঞানীও জানেন না আকাশ কত বড়।

একটু চুলচেরা বিশ্লেষণ করা যাকআগে জানবো আকাশ  কি?

আকাশ আমাদের পৃথিবী থেকে বাইরের দিকে অবস্থিত।এটি মহাবিশ্বের একটি অংশবিশেষ। বিজ্ঞানীরা এটাকে কাল্পনিক গোলক হিসেবে কল্পনা করেন  আকাশ নামের  গোলোকে রয়েছে পৃথিবীর আশ্চর্যজনক সকল বস্তু: সূর্য, চন্দ্র, গ্রহ, নক্ষত্র, উপগ্রহ, ধূমকেতু, বিভিন্ন জ্যোতিষ্ক মন্ডলী, কৃষ্ণগহ্বর, ছায়াপথ আরও নাম না জানা কত কি?

দিনের আলোয় আলোর বিক্ষেপণ হয় অর্থাৎ আলোক ছড়ানোর জন্য আকাশ নীল দেখায়, আবার রাতের আকাশে আলোর বিক্ষেপণ না থাকায় আকাশ অন্ধকার দেখায়,  দিনের আকাশে মেঘের অনুপস্থিতিতে সূর্য দেখা যায়, আবার মাঝে মাঝে আকাশে সুন্দর রংধনু ওঠে। রাতের আকাশে কখনো কখনো চাঁদ দেখা যায়, কখনো বা আকাশে নানান মেঘের খেলা আমরা দেখতে পাই। আকাশে   নানান চেহারার পরিবর্তন এক আশ্চর্যজনক বিষয়।

আকাশে  যে মেঘ আমরা দেখতে পাইসেগুলো নাকি অনেক বড় বড় পাহাড়ের থেকে বড় আকারের হয় আর মজার বিষয়, বেশিরভাগ মেঘমালা তৈরি হয় সমুদ্র পৃষ্ঠের জলীয়  ভাগ বাষ্প হওয়ার মাধ্যমে।

ঝড়বৃষ্টি জলোচ্ছ্বাস এরকম নানান ধরনের প্রাকৃতিক কর্মকাণ্ড আকাশের এই অংশে বেশি হয়ে থাকে। ছোট থেকেই আমাদের কৌতূহলের বিষয় সৌরজগৎ। এই সৌরজগতের কেন্দ্র রয়েছে আশ্চর্যজনক একটি  নক্ষত্র সূর্য। জেনে রাখা ভালো নক্ষত্রগুলো নিজস্ব আলো থাক। আর গ্রহগুলোর নিজস্ব কোন আলো থাকে না। সূর্য একটি নক্ষত্র আয়তনে পৃথিবীর চেয়ে ১৩ লক্ষ গুণ বড় এবং চাঁদের চেয়ে ২ কোটি ৩০ লক্ষ গুণ বড়। সূর্যের কেন্দ্রের তাপমাত্রা প্রায় ১৫০০০০০০০  ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং পৃষ্ঠভাবে তাপমাত্রা প্রায় ৬০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যাইহোক আমরা তো তাপমাত্রা নিয়ে আলোচনা করছি না, আমাদের মূল বিষয় আকাশ কত বড়

সৌরজগতে সূর্যের চেয়ে অনেক অনেকগুন ছোট মোট আটটি গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। সেগুলোর নাম জেনে নেই।  বুধ, শুক্র ,পৃথিবী, মঙ্গল ,বৃহস্পতি ,শনি ,ইউরেনাস এবং নেপচুন।  এদের নিজস্ব কোন আলো নেই সূর্যের আলোতে আলোকিত হয়। 

এগুলোর মধ্যে পৃথিবী নামটা আমাদের খুবই পরিচিত কারণ আমরা পৃথিবীতে বসবাস করি। পৃথিবী নিয়ে একটু বলা যাক। এই পৃথিবীতে মোট ১৯৫ টি দেশ রয়েছে। এই পৃথিবীতে প্রায় ৭৫০ কোটি মানুষ এবং অগণিত উদ্ভিদ, প্রাণী ,নদীনালাখালবিল, বন জঙ্গল, সমুদ্র মহাসমুদ্রে ইত্যাদি রয়েছে

পৃথিবী সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ।  পৃথিবী থেকে সূর্যের দূরত্ব ৯৩ মিলিয়ন মাইল বা ১৫ কোটি কিলোমিটার। সূর্য থেকে পৃথিবীতে আলো আসতে সময় লাগে মাত্র ৮.৩২ মিনিট বা ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড। তাহলে একটু ভাবুন আলোর বেগ কতচলুন জেনে নেয়া যাক আলোর বেগ সম্পর্কে। আলো প্রতি সেকেন্ডে চলে ২৯৯৭৯২৪৫৮  মিটার। ভাবা যায়, অবাক হলেন। এবার আসুন জেনে নেই পৃথিবী থেকে ১৩০০ গুন বড় গ্রহের নাম বৃহস্পতি অর্থাৎ বৃহস্পতি  গ্রহটি হল ১৩০০  টি পৃথিবীর সমান। সূর্য কত বড়  ভাবুন একটু। 

এই সূর্যের চেয়েও আবার ৫০০ গুণ বড় নক্ষত্র রয়েছে যার নাম  বেটিলগম।  রাতের আকাশে এরকম কোটি কোটি নক্ষত্র মিট মিট করে  জলে চাঁদ কত বড়? চাঁদের চেয়ে সূর্য  বড়? আর এই সূর্যকে আকাশে দেখলে মনে হয় একটা গোলাকার থালার মত তাহলে আকাশ কত বড়। মহান আল্লাহ কত মহান এই আকাশের নিচে আমাদের মতো ক্ষুদ্র প্রাণীদের যুগ যুগ ধরে বাঁচিয়ে রেখেছেন।

লেখক,

মোঃআলামিন হোসেন,

লেকচারারড্যাফোডিল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

Comments are closed.